পাতা

কী সেবা কীভাবে পাবেন

                  

ঘূর্ণিঝড় প্রস্ত্ততি কর্মসূচী  (সিপিপি )  এর মাধ্যমে নিম্নবর্নিত সেবা প্রদান করা হয় :-

 

# প্রতিদিন ২/৩ বার সকাল,বিকাল,সনধ্যায় ঢাকা থেকে আবহাওয়ার তথ্য ওয়ারলেসের মাধ্যমে গ্রহন ও ইউনিয়ন/ বিচ্ছিন্ন চরাঞ্চলের ভিএইচ ওয়ারলেস স্টেশনে প্রেরন  করা হয় যার ফলে বিপদাপন্ন জনগণ  আবহাওয়া সংবাদ অনুযায়ী পারিবারিক প্রস্ত্ততি গ্রহন সহ  নদী /বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরা ট্রলার এবং নৈাকা নিরাপদ স্থানে আশ্রয় গ্রহন করতে পারে।

 

# নিম্নচাপ /ঘূর্ণিঝড় সৃষ্টি হলে  : সেচ্ছাসেবকদের  মাধ্যমে  সংকেত পতাকা উত্তোলন ,মেঘাফোন ,সুপার মেঘাফোন ,সাইরেন ও মাইকের মাধ্যমে সংকেত প্রচার এবং ৮ থেকে ১০ নং মহা বিপদ সংকেত দিলে লোকজনকে নিরাপদ স্থান/ আশ্রয় কেন্দ্রে আসার জন্য আহবান  ও সহায়তা প্রদান করা ।

 

# প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান : আশ্রয় কেন্দ্রে আশ্রিত লোকজনকে সেবা প্রদান করা। দুর্যোগ পরবর্তী আহত ও মুমুর্ষ লোকজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান ও ডাক্তার/চিকিৎসা কেন্দ্রে প্রেরণ।

# উদ্ধার কার্যক্রম : দুর্যোগ চলাকালিন ও পরবর্তি সময়ে বিপদগ্রসহ লোকজনকে উদ্ধারের কৌশল অবলম্বন করে নিরাপদ স্থানে স্থানানন্তর করা।

 

# আশ্রয়কেন্দ্র ব্যবস্থাপনা: ঘূর্ণিঝড় পূর্ববর্তী সময়ে আশ্রয় কেন্দ্র রক্ষনাবেক্ষন, ঘূর্ণিঝড় চলাকালিন অধিক ঝুকি সম্পুন্ন জনগণ বিশেষ করে প্রতিবন্ধি,নারী শিশু, বৃদ্ধদের আশ্রয়ে সহায়তার ব্যবস্থা করা। আশ্রিত মানুষদের খাবারে ব্যবস্থা করা ।

# গনসচেতনামূলক কার্যক্রম : দুর্যোগে জান ও মালের ক্ষয়ক্ষতি রোধে র‌্যালি, জেলেদের প্রশিক্ষন,নাটক,জারিগান,মাঠমহড়া ইত্যাদি এর মাধ্যমে বিপদাপন্ন জনগণকে সচেতন করা।

 

  # ত্রানকার্যক্রমে সহায়তা :  দুর্যোগ পরবর্তী সময়ে হারিয়ে যাওয়া ব্যক্তির খোজ করা ,মৃত ব্যক্তির আত্নিয় স্বজনদের সান্তনা প্রদান ,মৃত ব্যক্তির সৎকার করণ ,ত্রাণ সামগ্রী বিতরনে সাহায্য প্রদান,ঘড়বাড়ী মেরামতে সাহায্য করা।

       # সমাজসেবামূলক কার্যক্রম :   ভেড়ী বাধ মেরামত,বৃক্ষরোপন ,রাস্তাঘাট নির্মান ও সমাজ উন্নয়ন মূলক কাজে  সহায়তা  প্রদান ।


Share with :

Facebook Twitter